মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

আসুন বয়স্কভাতা বিষয়ে জেনে নেই.

আসুন বয়স্কভাতা বিষয়ে জেনে নেই... লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যঃ (১) বয়স্ক জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও সামাজিক নিরাপত্তা বিধান; (২) পরিবার ও সমাজে তাঁদের মর্যাদা বৃদ্ধি; (৩) আর্থিক অনুদানের মাধ্যমে তাঁদের মনোবল জোরদারকরণ; (৪) চিকিৎসা ও পুষ্টি সরবরাহ বৃদ্ধিতে সহায়তা করা। প্রার্থী নির্বাচনের মানদন্ডঃ (ক) নাগরিকত্ব: প্রার্থীকে অবশ্যই বাংলাদেশের স্থায়ী নাগরিক হতে হবে। (খ) বয়স: সর্বোচ্চ বয়স্ক ব্যক্তিকে অগ্রাধিকার প্রদান করতে হবে। (গ) স্বাস্থ্যগত অবস্থা: যিনি শারীরিকভাবে অক্ষম অর্থাৎ সম্পূর্ণরূপে কর্মক্ষমতাহীন তাঁকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিতে হবে। (ঘ) আর্থ-সামাজিক অবস্থা: (১) আর্থিক অবস্থার ক্ষেত্রে: নিঃস্ব, উদ্বাস্ত্ত ও ভূমিহীনকে ক্রমানুসারে অগ্রাধিকার দিতে হবে। (২) সামাজিক অবস্থার ক্ষেত্রে: বিধবা, তালাকপ্রাপ্তা, বিপত্নীক, নিঃসন্তান, পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন ব্যক্তিদেরকে ক্রমানুসারে অগ্রাধিকার দিতে হবে। (ঙ) ভূমির মালিকানা: ভূমিহীন ব্যক্তিকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। এক্ষেত্রে বসতবাড়ী ব্যতীত কোনো ব্যক্তির জমির পরিমাণ ০.৫ একর বা তার কম হলে তিনি ভূমিহীন বলে গণ্য হবেন। ভাতা প্রাপ্তির যোগ্যতা ও শর্তাবলীঃ (১) সংশ্লিষ্ট এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে; (২) জন্ম নিবন্ধন/জাতীয় পরিচিতি নম্বর থাকতে হবে; (৩) বয়স পুরুষের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন ৬৫ বছর এবং মহিলাদের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন ৬২ বছর হতে হবে। সরকার কর্তৃক সময় সময় নির্ধারিত বয়স বিবেচনায় নিতে হবে; (৪) প্রার্থীর বার্ষিক গড় আয় অনূর্ধ ১০,০০০ (দশ হাজার) টাকা হতে হবে; (৫) বাছাই কমিটি কর্তৃক নির্বাচিত হতে হবে। বিঃ দ্রঃ বয়স নির্ধারণের ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্র, জন্ম নিবন্ধন সনদ, এসএসসি/সমমান পরীক্ষার সনদপত্র বিবেচনা করতে হবে। এ ক্ষেত্রে কোন বিতর্ক দেখা দিলে সংশ্লিষ্ট কমিটির সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে। ভাতা প্রাপ্তির অযোগ্যতাঃ (১) সরকারি কর্মচারী পেনশনভোগী হলে; (২) দুঃস্থ মহিলা হিসেবে ভিজিডি কার্ডধারী হলে; (৩) অন্য কোনোভাবে নিয়মিত সরকারী অনুদান/ভাতা প্রাপ্ত হলে; (৪) কোনো বেসরকারি সংস্থা/সমাজকল্যাণমূলক প্রতিষ্ঠান হতে নিয়মিতভাবে আর্থিক অনুদান/ভাতা প্রাপ্ত হলে।

ছবি


সংযুক্তি

e6782cedff515649289ee72b89afa354.pdf e6782cedff515649289ee72b89afa354.pdf


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter